পরিচর্যাকারীর দৈহিক ও মানসিক চাপ - Alzheimer Society of Bangladesh

Dementia Help Line

Cell No: +8801720 498197
Cell No: +8801857 601061

Email:- info@alzheimerbd.com

পরিচর্যাকারীর দৈহিক ও মানসিক চাপ

ডিমেনশিয়া শুধু ডিমেনশিয়া আক্রান্ত ব্যক্তির নয় গোটা পরিবারেরই ক্ষতি করে। পরিচর্যাকারী হিসেবে এটার সর্বাধিক ঝামেলা আপনার উপর বর্তাবে। ডিমেনশিয়া আক্রান্ত ব্যক্তির দৈহিক ও মানসিক চাপ প্রচুর এবং রোগকে মোকাবিলা করতে হলে আপনাকে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা প্রণয়ন করতে হবে। স্মরণ রাখবেন আপনার মানসিকতা ডিমেনশিয়া আক্রান্ত ব্যক্তির সমস্যা নিরসন করতে সাহায্য করবে। কিছু মানসিক চাপ যেমন দুঃখ, অপরাধ বোধ, রাগ, কিংকর্তব্যবিমুখ এবং একাকী অনুভব করতে পারেন।

দুঃখঃ

যে সবকিছু হারানোর বেদনা অনুভূতি করেছে তার কাছে এটা স্বাভাবিক ব্যাপার। ডিমেনশিয়া প্রভাবের ফলে আপনি অনুভব করতে পারেন যে আপনি সঙ্গী, বন্ধু-বান্ধব এবং বাবা-মাকে হারিয়েছেন। যখন আপনি মনে করছেন যে আপনি মানিয়ে নিয়েছেন ঠিক সেই সময় ব্যক্তি তার মনের অবস্থা পরিবর্তন করতে পারে। ব্যক্তি যখন আপনাকে চিনতে পারে না তখন এটা আপনার কাছে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠে। অনেক পরিচর্যাকারীরা মনে করেন যে, সহায়তাকারী দলের সাথে মিলিত হলে কাজ চালিয়ে যাওয়া সহজ হতে পারে।

অপরাধবোধঃ

ব্যক্তির ব্যবহারে কিংকর্তব্যবিমুখ হলে আপনি সাধারণভাবে অপরাধ বোধ মনে করতে পারেন এবং ব্যক্তির প্রতি আপনার ক্রোধের সৃষ্টি হতে পারে। আপনি মনে করতে পারেন ব্যক্তিকে আর যত্ন নিবেন না। ব্যক্তিকে কোন নার্সিং হোমে ভর্তি করে চিকিৎসা করানো উচিত ভেবে আপনি নিজেকে অপরাধী বলে মনে করতে পারেন। আপনার অনুভূতি সম্পর্কে আপনি অন্য কোন পরিচর্যাকারী ও বন্ধু-বান্ধবের সাথে আলোচনা করতে পারেন।

ক্রোধঃ

আপনার ক্রোধ মিশ্রিত হতে পারে। এটা ব্যক্তির প্রতি, আপনার নিজের প্রতি, চিকিৎসকের প্রতি বা অবস্থার প্রতি হতে পারে।  তবে এর সবকিছু পরিস্থিতির উপর নির্ভর করবে। ব্যক্তির আচরণের প্রতি আপনার ক্রোধকে ব্যক্তির প্রতি ক্রোধ থেকে পৃথক করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটা রোগের কারণে হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে বন্ধু-বান্ধব, পরিবারের সদস্য/সদস্যা বা সহায়তাকারীর গ্রুপের সাহায্য নিন। কোন কোন সময় লোকেরা এত বেশি খেপে যায় যে তাকে যারা পরিচর্যা করছে তাঁর আহত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। এরূপ অনুভূতি হলে আপনি অবশ্যই পেশাগত সাহায্য নিন। এরূপ হতে পারে যে আপনাকেই আক্রান্ত ব্যক্তির যাবতীয় দায়-দায়িত্ব নিতে হচ্ছে। যেমন- বিল পরিশোধ করা, বাড়ীঘর দেখাশুনা করা, রান্নাবান্না করা। এসব অতিরিক্ত দায়-দায়িত্ব আপনার কাছে অধিক চাপের কারণ হতে পারে। আপনার অনুভূতি পরিবারের অন্য সদস্য/সদস্যা বা চিকিৎসকের সাথে আলোচনা করলে তারা এক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে।

হত বুদ্ধিঃ

আক্রান্ত ব্যক্তি জনসমাজে অশোভনীয় ব্যবহার প্রদর্শন করলে আপনি কিছুটা অপ্রস্তুত হতে পারেন। এসব হতবুদ্ধির অনুভূতি দূর হতে পারে আপনি যদি এসব বিষয় আপনার মত অন্যান্য পরিচর্যাকারীর সাথে আলোচনা করেন যারা ঠিক আপনার মত ঘটনার মুখোমুখী হচ্ছেন। তাছাড়া বন্ধু-বান্ধব ও প্রতিবেশীদের নিকট আক্রান্ত ব্যক্তির রোগ জনিত আচরণ সম্পর্কে বিস্তারিত ব্যাখ্যা দিলে তারা ব্যক্তির আচরণ সম্পর্কে ভালভাবে বুঝতে পারে।

নিঃসঙ্গতাঃ

অনেক পরিচর্যাকারী সমাজে মেলামেশা বন্ধ করে ডিমেনশিয়া আক্রান্ত ব্যক্তির বাড়ীতে নিজেকে আবদ্ধ রাখেন। একজন পরিচর্যাকারী নিঃসঙ্গ হতে পারেন-আপনি আক্রান্ত ব্যক্তির সঙ্গ হারাতে পারেন এবং একজন পরিচর্যাকারী হিসেবে সামাজিক মেলামেশাও হারাতে পারেন। নিঃসঙ্গতা বোধের কারণে পরিচর্যা বিষয়ক জটিলতার সাথে খাপ খাওয়ানো কঠিন হয়ে যায়। বাইরের সবার সাথে বন্ধুত্ব রক্ষা এবং সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে আপনার সমস্যা সমাধান হতে পারে।